আমরা যারা মোবাইল চালাই তারা অবশ্যয় একবার হলে ও শুনিছে IMEI নাম্বার এর কথা। আর আমাদের দেশে অবৈধ মোবাইল ফোন বন্ধ হয়ে যাবে , এইটা নিয়ে অনেকদিন থেকে কথা চলতেছে। সুতরাং আমরা সকলেই জানি IMEI নাম্বার এর কথা।

যে সকল মোবাইল ফোন রেজিস্ট্রেশান করা আছে সেটা দেশে কিনা বা বিদেশ থেকে পাঠানো সেই সকল মোবাইল ফোনের কোন সমস্যা হবেনা।বাকি সব মোবাইল IMEI নাম্বার এর মাধ্যমে বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ সরকার।



এই IMEI নাম্বার কিভাবে তৈরি হলে আর কেনই বা তৈরি হল ?

একজন মোবাইল ব্যাবহারকারী তার মোবাইল ব্যাবহার এর সময় সেটা হারিয়ে যায় বা যদি চুরি হয়ে জায়।সেটাকে খুজেবের করার জন্য আমরা কি করতে পারি নিজের ফোন নাম্বারে কল করব । কিন্তু যদি সেই চোর ছিম খুলে ফেলে তাহলে কি করা যায়। এবং মোবাইল ব্যাবহারকারীকে সনাক্ত করার জন্য। বিভিন্ন দেশ এর সরকার এর পরিকল্পনাতে IMEI এর নিধ্যান্ত নেওয়া হয়। এবং প্রতিটা ডিভাইসকে ভিন্ন ভিন্ন IMEI কোড দেওয়া হয়।

IMEI নাম্বার কী ?

IMEI এর অর্থ হল ( International Mobile Equipment Identity )। এটি একটি নতুন নাম্বার যা সনাক্ত করে ২জি ৩জি এবং ৪জি ( GSM, WCDMA and iDEN ) থাকা মোবাইল এবং স্যাটালাইট ফোন। একটি ফোনে একটি IMEI নাম্বার থাকে।দুইটি সিম এর মোবাইলে দুইটি IMEI নাম্বার থাকে।

IMEI নাম্বারটি সুধুমাত্র আপনার ডিভাইসকে সনাক্ত করে আপনাকে না । বা আপনার কোনো তথ্য নেওয়া দেওয়া করেনা। এই IMEI নাম্বার ২জি নেটওয়ার্ক এর মাধ্যমে সঠিক ডিভাইস্ কে সনাক্ত করে । এবং চুরি হওয়া মোবাইল ফোনকে সেই দেশের নেটওয়ার্ক এ চালানো বন্ধ করা জায়।কিন্তু অন্য দেশের নেটওয়ার্ক এ মোবাইল ফোনটি কাজ করবে।

IMEI নাম্বার কি ভাবে কাজ করে ?

IMEI নাম্বার সাধারণত ১৫ নাম্বার এবং ১৭ নাম্বার এর হয়ে থাকে। বিভিন্ন দেশে এই IMEI নাম্বার ব্যবহার করে দেকা যায় নাম্বার টা ব্লক করা আছে বা বাল্কলিষ্ট করা আছে নাকি। এই IMEI নাম্বার দিয়ে আপনি আপনার মোবাইল ডিভাইসটির মডেল এবং সকল ইনফরমেশন দেখতে পারবেন।

IMEI নাম্বার সাধারণত AA-BBBBBB-CCCCCC-D বা এর জাইগাই EE হয়।

এখানে যেই AA ব্যবহার করা হয়েছে এই সংখ্যা দিয়ে বোঝা যায় ডিভাইসটি কোন ২জি কম্পানিতে থেকে রেজিস্ট্রার করা হয়েছে। এটি এন্ট্রি কোড নয়।

BBBBBB বা পরের যে ৬ টি কোড ব্যবহার করা হয়েছে সেটাহলো ডিভাইস কোড । এই কোডটা দিয়ে বোঝাযায় কোন কম্পনি এই ফনেটা বানিয়েছে এবং মোবাইল ফোন এর মডেল। ধরুন NOKIA তাদের একটা নতুন ডিভাইস এর জন্য আবেদন করেছে। এবং তারা একটা নতুন IMEI কোড পেয়েছে যেটা 000000 তাহলে এই কোড টা দিয়ে তাদের ডিভাইস এবং এর ইনফরমেশন বোঝাবে ।

A এবং B যা প্রথম ৮ টি সংখ্যাকে বলা হয় TAC বা ( Type Allocation Code)। এই TAC নাম্বার থেকে জানা যায় আপনি কোন মডেল এর ফোন ব্যবহার করতেছেন এবং কোন কম্পানির।

IMEI এ যে cccccc এর জাইগাই যেই কোড ব্যবহার করা হয়েছে এটি রিডিও মডিউল নুম্বের।এই কোডকে SNR বলে।SNR নাম্বার একটি পৃথক সিরিয়াল নাম্বার যা TAC এ থাকা প্রতিটি ইনফরমেশন কে সতন্ত্রভাবে চিহ্নিত করে।

D এ যে নাম্বারটি থাকে এই নাম্বারটি IMEI নাম্বারকে ভেরিফাই করে।

আর EE এ থাকা নাম্বারটি ফোনএর মডেল এবং সফটওয়্যার ভার্সন জানাই।

IMEI নাম্বার দেখার নিয়মঃ

এন্ড্রয়েড ফোন *#06# ডায়াল করলে ডিভাইস এর স্ক্রীন এ  কোড শো করে। এছারাও আপনি আপনার ফোন এর সেটিং এ গিয়ে About Device > Status > IMEI Information অথবা সেটিং এ গিয়া সার্চ করেন IMEI দেকতে পাবেন IMEI Information আসছে ওকে করেন পেয়ে যাবেন।

যেসব মোবাইল এর ব্যটারি খোলা যায় সেইসব ডিভাইস এর ব্যাটারির নিচে IMEI কোড দেওয়া থাকে।

অ্যাপেল বা iPhone ইউজার সিম ট্রে বা ব্যাকে IMEI নাম্বার পেয়ে যাবেন। অথবা আপনি আপনার ফোন এর সেটিং এ গিয়ে Setting > Genaral > About



আপনার ফোনটি বাংলাদেশে নিবন্ধন আছে কি ? তা জানার উপায়-

 

আপনার ফোনের ম্যাসেজ অপশনে গিয়ে KYD লিখে স্পেস দিয়ে আপনার ফোনের IMEI নম্বরটি লিখবেন এবং 16002 নম্বরে পাঠিয়ে দিবেন। ফিরতি ম্যাসেজ এ রেজিস্ট্রার না আনরেজিস্ট্রার তা জানা যাবে।

 

আপনার ফোনের IMEI নম্বরটি আসল নাকি তা জানবেন কি ভাবে ?

 

আপনি যেই ফোন ব্যাবহার করতেছেন সেই মোবাইলটা আসল না কি তা জানাটা জরুরি। এই জন্য আপনাকে একটা ওয়েবসাইটে যেতে হবে ।

https://www.imei.info/

এই ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার ফোন এর IMEI নাম্বার দিয়ে সার্চ করলে বুঝতে পারবেন আপনার ফোনটা আসল না নকল।

আর আপনি যদি iPhone ইউজার হয়ে থাকেন থলে নিচের সাইটে গিয়ে IMEI দিয়ে সার্চ দেন সব পেয়ে যাবেন।

https://checkcoverage.apple.com/

আপনার ডিভাইসটা যদি হারিয়ে যাই তাহলে কি করবেন?

আপনার মোবাইল টি যদি হারিয়ে ফেলেন তাহলে কি ভাবে আপনি সেটা ট্রেস করবেন কি ভাবে ? আপনি যদি Android ব্যেবহার করে থাকেন থলে আপনি গুগল এর সাইট টা ব্যবহার করতে পারেন।

https://www.google.com/android/find

এখান থেকে আপনি আপনার ফোনএ উচ্চ ভইস এ বাজাতে পারবেন তাছারা ও আপনি আপনার ফোনকে লক এবং রিস্টর করতে পারবেন।

iPhone  ইউজার হলে নিচের সাইট টা ব্যবহার করতে পারেন

https://www.icloud.com/find

 

আরও টেকনোলজি সমন্ধে জানতে আমাদের সাইট এ ভিজিট করতে ভুলবেন না । আপনারা যদি আরও কিছু জানতে চান কমেন্ট করে জানালে আমরা তা নিয়ে পোস্ট করতে পারব । ধন্যবাদ